করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথম নির্বাচনী জনসভায় ট্রাম্প

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১২ অক্টোবর ২০২০, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 22 বার
করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথম নির্বাচনী জনসভায় ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথমবার প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছেন। স্থানীয় সময় শনিবার হোয়াইট হাউসে এক নির্বাচনী সভায় যোগ দেন তিনি। অন্যদিকে ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন পেনসিলভানিয়ার এরি কাউন্টিতে এক নির্বাচনী প্রচারাভিযানে অংশ নিয়েছেন। সেখানে তিনি রিপাবলিকান দলের ওপর অসন্তুষ্ট ও বিরক্ত ভোটারদের উদ্দেশে বলেন, তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে যারা ভোট দেবেন এবং যারা দেবেন না তাদের সবার জন্যই তিনি কাজ করে যাবেন। এদিকে রিপাবলিকান সিনেটররা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এবারের নির্বাচনে হয়তো ট্রাম্প হেরে যাবেন। খবর বিবিসি, সিএনএন ও গার্ডিয়ানের।

হোয়াইট হাউসের ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে ট্রাম্প জানালেন, তার দারুন লাগছে তার। ওই সভাতেই একটানে নিজের মাস্ক খুলে ফেলতেও দেখা গেছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এ খবর জানিয়েছে। ট্রাম্প বলেন, আমার খুব ভাল লাগছে। আগামী নির্বাচন আমাদের দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আপনারা ঘর থেকে বের হোন এবং ভোট দিন। প্রতিপক্ষকে খোঁচা দিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বীরা অবৈজ্ঞানিকভাবে লকডাউন করে করোনার প্রভাব থেকে বেরিয়ে আসার প্রক্রিয়া ধ্বংস করে দেবে। ট্রাম্প মাস্ক খুলে ফেললেও তার বক্তব্য শুনতে যারা উপস্থিত হয়েছিলেন তাদের সবাইকে মাস্ক পরতে দেখা গেছে। প্রেসিডেন্ট আক্রান্ত হওয়ার পরে তার সভায় কঠোর স্বাস্থ্যবিধি আরোপ করেছে হোয়াইট হাউস।

হোয়াইট হাউসে দাঁড়িয়ে ট্রাম্প বলেন, আমি আমার দেশের মানুষদের বলতে চাই যে, আমরা করোনাভাইরাসকে হারাতে চলেছি। এই ভাইরাস উধাও হচ্ছে। এটি উধাও হতে চলেছে। আমরা শক্তিশালী ওষুধ ও চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কার করেছি। অসুস্থদের আমরা সুস্থ করে তুলছি। খুব তাড়াতাড়ি ভ্যাকসিন আসতে চলেছে। তাও আসছে রেকর্ড সময়ে।

সভায় উপস্থিত হওয়া ব্যক্তিরা ট্রাম্পের নামে জয়ধ্বনি উচ্চারণ করেন। যদিও নির্বাচনের আগে খুব ভাল অবস্থানে নেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট। জনমত জরিপে প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের থেকে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছেন তিনি। রবিবার ফ্লোরিডায় বিশাল জনসভা রয়েছে ট্রাম্পের। তারপরে মঙ্গলবার পেনসিলভানিয়া ও বুধবার লোয়াতে সভা করবেন তিনি।

হোয়াইট হাউসের বিবৃতি ॥ ট্রাম্পের দ্বারা অন্যদের সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি নেই বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। শনিবার তার চিকিৎসক সিন কনলে বলেন, ট্রাম্প অন্যকে সংক্রমিত করার ঝুঁকিতে নেই।

জো বাইডেনের জনসভা ॥ আগামী মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী বাইডেন পেনসিলভানিয়া ও ডেলাওয়ারে প্রচার চালান। সেখানে তিনি বলেন, যেসব পরিবার করোনাভাইরাসে প্রিয়জনদের হারিয়েছেন তাদের জন্য তিনি সমবেদনা জানাচ্ছেন। সমাবেশে তিনি ট্রাম্পের পরিকল্পনার কঠোর সমালোচনা করেন এবং বলেন, সেগুলো খুবই বিপজ্জনক। কেননা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক পরা আমাদের সবার জন্য অবশ্য কর্তব্য। পেনসিলভানিয়ায় এক জনসভায় তিনি আরও বলেন, তিনি লাখ লাখ বেকারের জন্য কাজের ব্যবস্থা করবেন ও মহামারী দূর করতে তহবিল গঠন করবেন। সেজন্য বিলিওনিয়ার ও কর্পোরেশনকে করের আওতায় আনা হবে।

রিপাবলিকান সিনেটরদের শঙ্কা ॥ রিপাবলিকান সিনেটর টেড ক্রুজ, থম টিলিস, মিচ ম্যাককনেলের মতো শীর্ষস্থানীয় সিনেটররা ট্রাম্পের এবারের নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তাদের আশঙ্কা এবার হয়তো ট্রাম্প হেরে যাবেন। টেড ক্রুজ সিএনবিসির স্কোয়াক বক্স অনুষ্ঠানে দেয়া এক সাক্ষাতকারে বলেন, আমার মনে হয় এবারের নির্বাচন খুবই বিপর্যয়কর একটি নির্বাচন। আমার ধারণা, আমরা হয়তো এবার হোয়াইট হাউস ও কংগ্রেসে পরাজিত হবো। যা সম্ভবত ওয়াটার গেট কেলেঙ্কারির মতো হবে। আমি উদ্বিগ্ন, এটি সংঘাতময় ও উচ্চমাত্রায় সাংঘর্ষিক হতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।