রাস্তায় নামবে বৈদ্যুতিক গাড়ি

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১৭ অক্টোবর ২০২০, ৯:০৯ পূর্বাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 26 বার
রাস্তায় নামবে বৈদ্যুতিক গাড়ি

উন্নত বিশ্বের মতো সরকার রাস্তায় নামাতে চায় বৈদ্যুতিক গাড়ি। এজন্য সরকার চার্জিং স্টেশন নির্মাণ করে দেবে। তবে সাধারণ মানুষের ইলেক্ট্রিক গাড়ির ব্যবহার বাড়াতে হবে। নতুন পরিবহন ব্যবস্থা সংযোজনের জন্য ব্যাপক জনসমর্থন প্রয়োজন। এজন্য যন্ত্রকৌশলীদের মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। শুক্রবার আয়োজিত এক সেমিনারে বিদ্যুত বিভাগের পক্ষ থেকে এসব কথা বলা হয়েছে।

বিশ্বের বিভিন্ন উন্নত দেশ জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার কমিয়ে আনছে। এজন্য পরিবহনে বিদ্যুত ব্যবহার করছে। ইউরোপ তাদের রাস্তা থেকে জীবাশ্ম জ্বালানিতে চলা গাড়ি তুলে নিতে নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়েছে। বিশ্বের নামী দামী গাড়ি নির্মাতারাও ইলেক্ট্রিক গাড়ির ডিজাইন করছে। এধরনের গাড়িতে আরও বেশি পথ অতিক্রম করার জন্য বিশ্বব্যাপী চলছে নিরন্তর গবেষণা।

লিথিয়াম আয়োন ব্যাটারির উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের জীবনে বিদ্যুতের ব্যবহার বাড়ছে। মোবাইলের চার্জ থেকে শুরু করে এই ব্যাটারিতে চলছে ইলেক্ট্রিক গাড়ি। ক্রমে এই ব্যাটারি নিয়ে গবেষণায় নতুন নতুন ধারণা মিলছে। কিভাবে কম সময়ে ব্যাটারিতে চার্জ দেয়া যায়। আর চার্জ কিভাবে আরও দীর্ঘ সময় ধরে রাখা যায় তা নিয়েই এখন কাজ হচ্ছে। তবে এই ব্যাটারি একবার চার্জ করলে এখন কয়েক শ’ কিলেমিটার গাড়ি চালানো যায়। শুধু ব্যক্তিগত ব্যবহারই নয় রিচার্জ করা যায় এমন ব্যাটারি দিয়ে যাত্রীবাহী বাস পর্যন্ত চলছে।

বিদ্যুত জ্বালানি এবং খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ শুক্রবার এক সেমিনারে বলেন, এজন্য নগরায়নের সঙ্গে খাত-ভিত্তিক মহাপরিকল্পনা নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি নিশ্চিত করতে সহযোগিতা করবে। বিতরণ ও সঞ্চালন খাতে ধারাবাহিকভাবে আধুনিক প্রযুক্তি সংযুক্ত করা হচ্ছে। আগামী দিনের চাহিদার সঙ্গে সমন্বয় করে মানবসম্পদ উন্নয়নকেও বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

অনলাইনে সেমিনারটি আয়োজন করে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন-এর যন্ত্রকৌশল বিভাগ। প্রতিমন্ত্রী বলেন, তেলচালিত যানবাহনের ইঞ্জিনের দক্ষতা ২০ ভাগ অন্যদিকে বিদ্যুতচালিত যানবাহনের ইঞ্জিনের দক্ষতা ৮০ ভাগ। তাই বিদ্যুতচালিত যানবাহনের ব্যবহার বাড়ানোর জন্য ব্যাপক জনসমর্থন প্রয়োজন। বিদ্যুত বিভাগ প্রয়োজনীয় চার্জিং স্টেশন করে দিবে। অবকাঠামোগত উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুত ও জ্বালানির চাহিদা ব্যাপক হারে বেড়ে যাচ্ছে। উন্নয়ন যত পরিকল্পিতভাবে হবে বিদ্যুত ও জ্বালানি সরবরাহ তত টেকসই হবে। এ সময় তিনি নবায়নযোগ্য জ্বালানি, নেট মিটারিং সিস্টেম, মাইক্রো ও ম্যাক্রো লেভেলের তথ্য, অটোমেশন, বিনিয়োগ এবং করোনা মহামারী পরবর্তী জ্বালানি চাহিদা নিয়ে আলোচনা করেন।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জ্বালানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ম. তামিম। তিনি জ্বালানি খাতের পরিকল্পনা ও তার বাস্তবায়ন, আগামী দিনের চাহিদা, আধুনিক প্রযুক্তি, বিশেষ আইন, গ্যাস ও এলএনজির ব্যবহার, মানবসম্পদ উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক স্থিতিস্থাপকতা নিয়ে তার প্রবন্ধে আলোকপাত করেন।

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন-এর যন্ত্রকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোহাম্মদ নাসির উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল এই সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক ও আইইবির ভাইস প্রেসিডেন্ট (একাডেমিক ও আন্তর্জাতিক) ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসাইন, জিটিসিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ আতিকুজ্জামান, আইইবির প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মোঃ নূরুল হুদা ও আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ আবদুস সবুর বক্তব্য রাখেন।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

আরও পড়ুন